শাওমি রেডমি নোট 7 প্রো ক্যামেরা রিভিউঃ ইউজলেস 48 ম্যাগাপিক্সেল

1
1038
Techmart News
Technews

2019 সালের মার্চ মাস শুরু হয়েছে শাওমি রেডমি নোট সিরিজের দুটি জনপ্রিয় ফোন শাওমি রেডমি নোট 7 ও শাওমি রেডমি নোট 7 প্রো এর গ্লোবাল উন্মোচন এর মাধ্যমে। ইতিমধ্যেই ভারতে শাওমি রেডমি নোট 7 প্রো এবং শাওমি রেডমি নোট 7 এর বিক্রয় শুরু হয়ে গেছে।

ভারতের বাজারে শাওমি রেডমি নোট 7 প্রো ফোনটি পাওয়া যাচ্ছে মাত্র 13999 রুপিতে। শাওমি রেডমি নোট 7 প্রো ফোনটি রিলিজ হওয়ার পর থেকেই আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়ে গিয়েছিল ফোনটির 48 মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা কে কেন্দ্র করে। ফোনটির রেয়ার ক্যামেরাতে সনি imx586 সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে। সেকেন্ডারি রেয়ার ক্যামেরাটিতে 5 মেগাপিক্সেল ক্যামেরা সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে। মূলত এই সেন্সরটি 12 মেগাপিক্সেল ছবি ক্যাপচার করে থাকে। কিন্তু পিক্সেল বাইনিং টেকনোলজি ব্যবহার করে প্রতিটি পিক্সেলকে আরো চারটি ভাগে ভাগ করে 48 মেগাপিক্সেলের ছবি ক্যাপচার করা হয়।

গত 10 ই মার্চ ভারতের জনপ্রিয় স্মার্টফোন রিভিউ চ্যানেল beeboom রেডমি নোট 7 প্রো ফোনটি রিভিউটি উন্মোচন করে তাদের ইউটিউব চ্যানেলে। তাদের ভিডিওতে রেডমি নোট 7 প্রো নিয়ে বেশ দীর্ঘ আলোচনা হয়েছে।

Beebom ক্যামেরা রিভিউ

ফোনটিতে থাকছে ট্রু 48 মেগাপিক্সেল সেন্সর। আমরা দেখেছি 48 মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা এর আগে শাওমি মি 9 এবং Honor View 20 এর মত ফ্ল্যাগশিপ ফোন গুলোতে হাইলাইট করা হয়েছে। ভাবতে চমতকার লাগে যে রেডমি নোট 7 প্রো এর মত বাজেট সিরিজেও ৪৮ মেগাপিক্সেল এর ক্যামেরা সেটাপ করা হয়েছে। ফোনটি দ্বারা তোলা ছবি গুলো বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, নোট 7 প্রো খুব ডিটেইল ছবি কেপচার করতে পেরেছে। ভাল ডায়নামিক রেঞ্জ ও পাওয়া গিয়েছে। কিছু ছবি কিছুটা ওভার সেচুরেটেড ছবি তুললেও পছন্দ হয়েছে খুব। পোট্রেট মোড ডিসেন্ট হলেও বেশিরভাগ সময় এডজ ডিটেকশনে কিছু সমস্যা দেখা গিয়েছে।

রেডমি নোট 7 প্রো এর রেয়ার ক্যামেরার লো লাইট ছবিগুলো খুব ভালো দেখা গিয়েছে যেটা বেশিরভাগ বাজেট ফোন গুলোর জন্য স্ট্রাগল হয়ে যায়। কিছু কিছু সময় রাতের ছবিগুলোতে কিছু সমস্যা দেখা গেলেও বেশিরভাগ সময় ফোনটি লো লাইটে খুব ভালো ছবি তুলতে পেরেছে।

ফোনটিতে নাইট মোড ফিচার যুক্ত করা হয়েছে। নাইট মোডে কিছুটা ভালো ডিটেলস পাওয়া যায়। ওভারঅল বিবেচনা করলে লো লাইটে ডিটেইলড ছবি তোলার জন্য নাইট মোড ফিচারটি একটি গুরুত্বপূর্ণ ফিচার। ফোনটিতে 12 মেগা পিক্সেল এবং 48 মেগাপিক্সেল এর কিছু পার্থক্য তুলে ধরা হয়েছে। যেখানে দেখতে পারা গিয়েছে 48 মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা ফিচার টি ইউজলেস ফিচার। 12 মেগাপিক্সেল এবং 48 মেগাপিক্সেলের ছবিগুলোর মধ্যে তেমন কোন পার্থক্য দেখা যায়নি। কোন কোন সময় 48 মেগাপিক্সেলের ছবি গুলো কিছুটা বেশি ডিটেলস দিতে পারলেও বেশিরভাগ সময় 12 এবং 48 মেগাপিক্সেলের ছবির মধ্যে তেমন কোন পার্থক্য দেখা যায়নি।

অন্যদিকে 48 মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা দিয়ে ছবিগুলো তুলতে গেলে ফোনটি 2 থেকে 3 সেকেন্ডের জন্য লেগিস ভাব দেখা যায়। যেটা খুব বিরক্তিকর।ফোনটিতে থাকছে 4কে ভিডিও রেকর্ডিং এর সুবিধা। 4কে ভিডিও রেকর্ডিং এ ওয়েল ফোকাস, ডিটেইলস ভাল পাওয়া গেলেও অনেক ভাল স্ট্যাবল ভিডিও পেতে 1080পি তে ভিডিও রেকর্ড করতে হবে।

নোট 7 প্রো এর ফ্রন্টে থাকছে 13মেগাপিক্সেল সিঙ্গেল ক্যামেরা সেনসর। ডে লাইটে খুব ভালো ছবি পাওয়া গিয়েছে। লো লাইট ছবি গুলো কিছুটা সফট এবং তেমন ইম্প্রেসিভ দেখা যায়নি।

ওভার অল বিবেচনায় নোট 7 প্রো এর বাজেট রেঞ্জ এর মধ্যে খুব ভাল ছবি প্রোভাইড করতে পেরেছে। কিছু কিছু সমস্যা হাইলাইট হলেও সর্বোপরি খুব ভাল ভাল ছবির অভিজ্ঞতা দিতে পারবে ফোনটি। যা এই বাজেটে এই মুহুর্তে খুব দুর্লভ হবে।

Facebook Comments

1 COMMENT

  1. I could not refrain from commenting. Very well written! Howdy just wanted to give you
    a quick heads up. The words in your article seem to be
    running off the screen in Firefox. I’m not sure if this is a formatting issue or something to
    do with web browser compatibility but I figured I’d post to let you know.
    The design look great though! Hope you get the problem solved soon. Kudos Its like you learn my thoughts!
    You seem to know so much approximately this, like you wrote the e-book in it or something.
    I believe that you simply could do with some percent to power the message home a bit, however instead of that, that is
    excellent blog. A fantastic read. I’ll certainly be
    back. http://starbucks.com

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here