ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে ডার্ক মোড

0
815

বর্তমানে ফেসবুকে অন্যতম ট্রেন্ডিং টপিক হচ্ছে মেসেঞ্জারের ডার্ক মুড। অনেকে এই বিষয় টা নিয়ে অবগত আছেন আবার অনেকেই এই বিষয় টা নিয়ে বিস্তারিত কিছুই জানেন না । এদের মধ্যে অনেকেই আবার আছেন যারা ডার্ক মুড সম্পর্কে জানতে পারলেও কিভাবে ডার্ক মুড অন করতে হবে তা জানেন না। টেক রিলেটেড বিভিন্ন গ্রুপে অনেকেই ডার্ক মেসেঞ্জার সম্পর্কে জানতে চেয়ে পোস্ট দিয়ে থাকেন।

আপনাদের সুবিধার্তে আজকে আলোচনা করবো মেসেঞ্জারের ডার্ক মুড নিয়ে। আলোচনার প্রথম পর্যায়ে থাকছে ডার্ক মুড অন করার পদ্ধতি এবং তার বিভিন্ন সুবিধা।

পদ্ধতিঃ
১। প্রথমে আপনার ফোন থেকে Messenger এর লেটেস্ট ভার্সন টি আপগ্রেড করতে হবে বা অন্য কারো থেকে মেসেঞ্জার এর লেটেস্ট ভার্সন টি নিয়ে ইনস্টল করতে হবে। এরপর মেসেঞ্জার থেকে আপনি কম ব্যবহার করেন অথবা নতুন কোন আইডি দিয়ে লগইন করুন।

২। এরপর মেসেঞ্জার থেকে Emoji তে ক্লিক করুন অথবা আপনার কি-বোর্ড এর ইমোজি অপশন থেকে “? ” চাঁদ এর ইমোজি টা অন্য কাউকে সেন্ড করুন।

৩। এবার দেখুন আপনার ডিসপ্লে তে ? ইমোজির এর পপ আপ এনিমেশন দেখা যাবে। তারপর মেনুতে গিয়ে দেখবেন ” Dark Mode ” চলে এসেছে। মেনু থেকে ডার্ক মুড টা অন করলেই হয়ে যাবে আপনার মেসেঞ্জারে নতুন ডার্ক মুড অপশন টি।

৪। এবার আপনার মেসেঞ্জার থেকে এই আইডি টি লগ আউট করে অন্য আইডি দিয়ে ওপেন করে দেখুন সেটাতেও ডার্ক মুড অপশন এসে গেছে।

৫। আর যাদের কোনভাবেই আসছে না তারা নেক্সট আপডেট এর জন্য আপেক্ষা করেন। আশা করা যাচ্ছে নেক্সট আপডেটে সব ইউজাররাই এই ফিচার টি পাবেন।

সুবিধাঃ
ডার্ক মুডে সাধারণত নরমাল মুডের থেকে কম চার্জ ব্যয় হয়ে থাকে। অনেকে আছে যারা অনেকক্ষণ ধরে মেসেঞ্জারে চ্যাট করে থাকেন এতে চোখের অনেক ক্ষতি হয়ে থাকে, ডার্ক মুডে এই সমস্যা থেকে কিছুটা হলেও পরিত্রান পাওয়া যায়। আর যারা এমুলেড ভা সুপার এমুলেড ডিসপ্লে যুক্ত ফোন ব্যবহার করেন তারা আরেকটু বাড়তি সুবিধা পাবেন এক্ষেত্রে কারন কালো রং গুলো দেখানোর সময় এমুলেড অনেক কম পাওয়ার ব্যবহার করে বিধায় চার্জিং ব্যাকাপ অনেক ভালো পাওয়া যাবে। এমুলেড ডিসপ্লে তে ডার্ক বা ব্ল্যাক কালারের ক্ষেত্রে শুধুমাত্র প্রয়োজনীয় পিক্সেল গুলো অন রেখে বাকি পিক্সেল গুলো অফ করে দিয়ে থাকে।

LCD ডিসপ্লে তে যেখানে সম্পূর্ণ ডিসপ্লে প্যানেলের পিছনে একটি ব্যাকলাইট রয়েছে, অন্যদিকে AMOLED বা Super Amoled এর নিজস্ব পিক্সেল এর একটি হালকা নির্গমন ডায়োড আছে যা তাদের নিজস্ব আলো তৈরি করে থাকে। সুতরাং যখন কোনো পিক্সেল কালোতে সেট করা থাকে তখন এটি বন্ধ হয়ে যায় এবং এইভাবে পর্দার অংশটিকে কালো কালো করে তোলে এবং এভাবে অনেকটা চার্জ সেভ করে থাকে।

সুতরাং ডার্ক মুড ব্যবহারের মাধ্যমে চোখের ক্ষতি থেকে কিছুটা রক্ষা পাওয়া যাবে, চার্জ কিছুটা কম ব্যয় হবে দেখতেও বেশ সুন্দর লাগে।

Facebook Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here